মঙ্গলে তরল পানির অস্তিত্ব, নাসার হাতে প্রমাণ

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি Feb 02, 2020 1388 Views
Googleplus Pint

লাইকবিডি ডেস্ক: মঙ্গলে পানির অস্তিত্বের দাবি অনেক দিন ধরেই করে আসছিলেন বিজ্ঞানীরা। সে তো নেহাতই সম্ভাবনা। নিছক অনুমান বিজ্ঞানীদের। হাতে অকাট্য প্রমাণ ছিল না, কিন্তু এবার যে ছবি নাসা প্রকাশ করেছে, তার পরে মঙ্গলে শুধু পনি নয় নদীর অস্তিত্ব কষ্টকল্পনা বলে আর অন্তত উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসা মঙ্গল গ্রহে তরল পানির অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে । এ ঘোষণার ফলে একদিন লাল এই গ্রহটিতে মানুষ যেতে পারবে—এমন আশা জোরালো হচ্ছে।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী, বাংলাদেশের স্থানীয় সময় সোমবার রাত সাড়ে নয়টায় নাসার কর্মকর্তারা সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন। সিএনএনের খবরে এ কথা বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে নাসা ‘মার্স মিসট্রি সলভড্’ বা ‘মঙ্গলের রহস্য উন্মোচিত’ শিরোনামে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে। এ ব্যাপারে নাসার সহযোগী প্রশাসক জন গ্রাসফিল্ড বলেন, মঙ্গলে তরল লবণাক্ত পানির অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া গেছে। এতে গ্রহটিতে প্রাণের অস্তিত্ব থাকার সম্ভাবনা আছে।

তবে কোথা থেকে কীভাবে পানি এল—এ ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু বলেননি নাসার গবেষকেরা। এ বছরের শুরুর দিকে নাসার পাঠানো কিউরিওসিটি রোভার মঙ্গলের পৃষ্ঠের কাছাকাছি তরল পানি খুঁজে পেয়েছিল। এই আবিষ্কারের পর মঙ্গল গ্রহ যে একেবারেই ঠান্ডা ও শুষ্ক সে ধারণা থেকে সরে আসেন গবেষকেরা। বিজ্ঞানীরা মনে করেন, মঙ্গলের পৃষ্ঠে এক ধরনের লবণের অস্তিত্ব আছে যা তরল পানিকে ফ্রিজিং পয়েন্টের নিচে একটি অবস্থায় যেতে সাহায্য করে।

গবেষকেরা মঙ্গলগ্রহের মেরু ও বেল্ট গ্লেসার অঞ্চলে হিমায়িত পানি থাকতে পারে বলে মনে করেন। তবে এবারের আবিষ্কারটি তরল পানির বড় আকারের ঝরনা হতে পারে যাতে জীবন ধারণ সম্ভবপর হতে পারে।

এক্সপ্লোর মার্স নামের একটি অলাভজনক মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী ক্রিস কারবেরি বোস্টন হেরাল্ডকে জানিয়েছেন, পানির সন্ধান পাওয়া গেলে ভবিষ্যৎ নভোচারীদের পানি ও অক্সিজেনের উৎস হিসেবে তা কাজে লাগবে। এখানে পানি থাকার অর্থ সেখানে তাপের কোনো উৎস রয়েছে যা পানিকে তরল করে রাখে। পৃথিবীতে যেমন পানি ও তাপ থাকলে সেখানে প্রাণ থাকার শতভাগ সম্ভাবনা থাকে। মঙ্গলেও সে সম্ভাবনা দেখা দিতে পারে।

মঙ্গলপৃষ্ঠে জলপ্রবাহের চিহ্ন ধরা পড়েছে নাসার ক্যামেরায়। নাসার বিজ্ঞানীদের দাবি, কোনও একটি নয়, একধিক নদী রয়েছে মঙ্গলে। এবং বর্তমানে সেইসব নদীতে পানিপ্রবাহ রয়েছে। কোনওটিই মরা বা শুকিয়ে যাওয়া নদী নয়। বিজ্ঞানীদের ধারণা অনুযায়ী, মঙ্গলের নদীর পানি মিষ্টি নয়, লোনা।

পানির অস্তিত্ব মেলার পরেই মঙ্গলে প্রাণ নিয়ে প্রবল আশাবাদী হয়ে উঠেছেন বিজ্ঞানীরা। বিজ্ঞানীদের পরবর্তী লক্ষ্য যে প্রাণের অস্তিত্ব খুঁজে বের করা, এদিন সে ইঙ্গিত দিয়েছে নাসা। তাদের দৃঢ় বিশ্বাস, লোনা পানিতে আণুবিক্ষনিক জীব থাকার সম্ভাবনা প্রবল।

সোমবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে নাসা জানায়, সারা বছর পানি না-থাকলেও, মঙ্গলের নদীতে সেখানকার গ্রীষ্মে পানি থাকেই। বাকি সময় ঠান্ডার কারণে পানি জমাট বেঁধে যায়। তাদের সাম্প্রতিক পর্যবেক্ষণ দীর্ঘদিনের থিওরিকেই সমর্থন করছে।

Originally posted 2017-07-29 02:13:51.

BB Links

  • Link :
  • Link+title :
  • HTML Link:
  • BBcode Link:
Googleplus Pint
Hasan (3070)
Administrator
User ID: 1
I Love likebd.com

Comments