Likebd.com

স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর ৪টি ফ্যাশন

বিডিলাইভ ডেস্ক: ফ্যাশানে পরিবর্তন আনতে আমরা সাজসজ্জায় পরিবর্তন আনি। আবার প্রায়ই জুতা, কাপড় কিংবা অন্তর্বাস নিয়ে অস্বস্তিতে পড়ি, যদি সেগুলো আমাদের স্বাভাবিক আরাম দিতে না পারে। অস্বস্তিকর পোশাক পরে দীর্ঘসময় থাকার মতো যন্ত্রণা আর কিছু হতে পারে না। এই রকম কিছু ফ্যাশনের বিষয় আছে যা হয়তো এখন আমাদের অস্বস্তি দিচ্ছে না কিন্তু স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর […]

লাইকবিডি ডেস্ক: ফ্যাশানে পরিবর্তন আনতে আমরা সাজসজ্জায় পরিবর্তন আনি। আবার প্রায়ই জুতা, কাপড় কিংবা অন্তর্বাস নিয়ে অস্বস্তিতে পড়ি, যদি সেগুলো আমাদের স্বাভাবিক আরাম দিতে না পারে। অস্বস্তিকর পোশাক পরে দীর্ঘসময় থাকার মতো যন্ত্রণা আর কিছু হতে পারে না। এই রকম কিছু ফ্যাশনের বিষয় আছে যা হয়তো এখন আমাদের অস্বস্তি দিচ্ছে না কিন্তু স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর প্রভাব রাখছে। আজ সেসব অস্বাস্থ্যকর ফ্যাশন চর্চা সম্পর্কে দেযা হলো।

# খুব আঁটশাট পোশাক পরিধান

হয়তো আঁটিশাটি পোশাক আপনার লুকে এক ধরনের আবেদন আনে। তবে এটি আপনার রক্ত সঞ্চালন এবং হজমকার্যক্রমে বাধার সৃষ্টির করছে। টাইট পোশাক হয়তো আপনাকে জিরো ফিগার দেখাতে সাহায্য করবে, তবে আর ঢোলা পোশাক কোনো মতেই আপনার সৌন্দর্যকে কম প্রকাশ করবে না। আর স্বাস্থ্যের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে মুক্তি পাবেন।

# হাই হিল প্রতিদিন পরা

হাই হিলে আপনাকে খুবি আবেদনময়ী দেখায় এতে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু এর মূল্য দিতে হচ্ছে আপনার পায়ের পাতাকে। তবে বলছি না হাই হিল পরা বাদ দিয়ে দিতে। অফিসে আপনার বসবার ঘরে, বাসায় কিংবা গাড়িতে আরাম দায়ক ফ্ল্যাট সোলের জুতা পরতে পারেন। আর খুব ভালো হয় কয়েক মাস অন্তর অন্তর যদি ফুট ম্যাসেজ করিয়ে নেন।

# ভারী ব্যাগ বহন

অনেকেই বিশাল ব্যাগ নিয়ে তাতে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে ঘুরে বেড়ান। এটাও ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে আপনার ঘাড়ে ও কাঁধে। তাই যতটা পারা যায় কম বোঝা বহন করুন। আপনার কাঁধ ও ঘাড়কে একটু স্বস্তি দিন।

#অতিরিক্ত ক্যামিকেল যুক্ত প্রসাধনী ব্যবহার

অনেকেই না জেনে নিম্নমানের নানা রঙের প্রসাধনী ব্যবহার করেন। এগুলো আপনার ত্বক ও শরীরের জন্য ক্ষতিকর। আপনার ত্বক বা শরীরের কোনো ক্ষতি করবে না এমনটা নিশ্চিত হয়েই ভালো মানের পণ্য ব্যবহার করুন।
স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর এমন ফ্যাশন চর্চাগুলো বাদ দেয়ার চেষ্টা করুন। স্বাস্থ্যের কথা আগে ভাবতে হবে।

Originally posted 2017-07-27 04:15:00.

Hasan

I Love likebd.com

Add comment

Categories

May 2020
M T W T F S S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031
May 2020
M T W T F S S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031