Home / লাইফস্টাইল / যেভাবে প্রেম নিবেদন করবেন‌ প্রিয় মানুষটিকে

যেভাবে প্রেম নিবেদন করবেন‌ প্রিয় মানুষটিকে

প্রেমের সম্পর্ক তৈরির আগে প্রিয় মানুষটিকে প্রস্তাব দিতে হবে একসঙ্গে থাকার। কিন্তু কাজটা খুব সোজা নয়। মনের জোর লাগে। ভাষার জোর লাগে। শরীরের ভঙ্গিমা লাগে। লাগে আরো অনেক কিছু। শুধু ফুল দিলে তো হবে না, কথাটাও তো বলতে হবে!

রবীন্দ্রনাথ থাকলেও তার সময়টা আর নেই। তাই এখনও কেউ যদি শেষের কবিতার অমিত, লাবণ্যকে দেখে প্রেম নিবেদন করতে যান তবে হোঁচট খেতে হবে। এই সময়ের মতো করে জেনে রাখা দরকার কেমন করে মনের মানুষটিকে মনের কথা বলতে হয়। রাজি করাতে হয়। শুধু বলায় তো কোনো ‘লাভ’ নেই।

সেই ছোট বেলা থেকে চন্দ্রিমাকে ভাল লাগে সুচরিতের। কিন্তু বলা হয়ে ওঠেনি। অনেক বার বলব বলব করেও ঠোঁট কেঁপে গিয়েছে। বুক ফেটেছে কিন্তু মুখ ফোটেনি। অন্য দিকে, চন্দ্রিমাও দাদার বন্ধু সুচরিত কী ভাববে ভেবে বলতে পারেনি। কতবার চার চোখ এক হয়েছে। কিন্তু চন্দ্রিমার বিয়ের দিনে দাদার বন্ধু সুচরিতকে বরযাত্রীদের টিফিন পরিবেশন করতে হল রক্তে ভেজা হৃদয় নিয়ে।

এই চন্দ্রিমা কিংবা সুচরিত ছড়িয়ে রয়েছে আমাদের চারপাশে। কেউ কেউ নিজেকেই হয় তো বসিয়ে ফেলবেন ওই চরিত্রে। আবার ঠিক করে ঠিক কথাটা না বলার জন্য বিগড়ে গেছে কত সম্পর্ক। আজ না হয়, কাল। কাল না হয় পরশু। যে কোনো দিনই প্রোপোজ ডে হয়ে উঠতে পারে ভালবাসার ‘ভাল’ অভিব্যক্তিতে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রেম নিবেদন মানে মেয়ে বা ছেলে পটানো নয়। জীবনসঙ্গী খুঁজে নেয়া। তাই এর মধ্যে আবেগ যেমন থাকবে, তেমনই চাই কৌশল। কারণ, কোনো কাজই পদ্ধতি মেনে না করলে তাতে ত্রুটি থাকে। যেমন-তেমন করে বলে ফেললেই হবে না। মনে রাখতে হবে যাকে প্রোপোজ করা হচ্ছে তিনি কেমন মানসিকতার। তার রুচি কেমন। গোলাপ না সূর্যমুখী?

সিনেমা নয়, বাস্তবের মাটিতে পা রাখুন। প্রোপোজ করার আগে নিজেকে কয়েকটা প্রশ্ন করুন। আপনি কি প্রেমের জীবনে প্রবেশ করতে চান? যাকে প্রোপোজ করবেন তিনি ফিরিয়ে দিলে কি সহ্য করতে পারবেন? আগে থাকতেই সে কারো সঙ্গে ভালবাসার সম্পর্কে জড়িয়ে থাকলে মেনে নিতে পারবেন? সব ক’টি প্রশ্নে নিজের থেকে ‘হ্যাঁ’ উত্তর পেলে তবেই ‌এগোন।

মনে রাখবেন প্রেম নিবেদন সবার আগে দরকার সাহস‌। প্রয়োজনে সাহস সঞ্চয়ের জন্য মেডিটেশন করতে পারেন। ক’টা দিন অভ্যাস করুন। শারীরিক কসরতও দরকার। যার মাধ্যমে প্রোপোজ করার সাহস খুঁজে পাবেন। দুই হাত বুক থেকে সরাসরি সামনের দিকে ছড়িয়ে দিন। এর পরে তা দুই পাশে বিস্তৃত করে চক্র তৈরি করুন। এতে হৃদয়টা যেন উন্মুক্ত করে দিলেন আপনি। মনে রাখবেন প্রোপোজ করার সময়ে আপনাকে দেখে যেন আত্মবিশ্বাসী মনে হয়।

অনেকে বলবেন প্রেমের মধ্যে এত নাটক করা যায় নাকি! কিন্তু মনে রাখবেন যতক্ষণ না সম্পর্ক গড়ে উঠছে ততক্ষণ আনুষ্ঠানিকতার প্রয়োজন রয়েছে। প্রয়োজনে তাই আপনাকে প্রেম নিবেদনের মহড়া দিতে হবে। বিশেষজ্ঞরা বলেন, একজন মানুষের ব্যক্তিত্বের ৯৩ শতাংশ জুড়ে রয়েছে অঙ্গভঙ্গি, কণ্ঠস্বর এবং সৌজন্য প্রকাশ।

এছাড়াও তিনটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে—
#  প্রোপোজের সময়টাকে যতটা পারা যায় উপভোগ্য ও মজাদার হতে হবে। পছন্দের মানুষকে পছন্দের মতো করে তখনই পাবেন যখন তার সঙ্গে সময়টা উপভোগ্য হবে। উষ্ণ হাসি আর খোলামেলা মানসিকতা চাই।

# প্রথম প্রেমই একমাত্র প্রেম হবে তার কোনও মানে নেই। জীবনে হৃদয় ভাঙার যে যে ঘটনা রয়েছে তা লিখে ফেলুন। খারাপ, ভাল সব লিখুন। নিজেকে বিচার করুন। সংশোধন না করলে প্রেম স্থায়ী হবে না।

# সবার আগে নিজেকে নিজের কাছে প্রতিশ্রুতিবান হতে হবে। এটা আপনার স্পষ্ট পরিচয় তুলে ধরতে সাহায্য করবে। ব্যক্তিত্বের বিকাশ ঘটাবে।

এত কিছু করতে পারবেন না? তাহলে চুপচাপ থাকুন। প্রোপোজ করতে যাবেন না। অপেক্ষায় থাকুন, প্রেম যেন একদিন আপনার সামনে দাঁড়িয়ে হাত বাড়িয়ে দেয়।

Share With

About Hasan

LIkebd Is best place where you share your knowledge. So I want to change this.

Check Also

বিয়ের জন্য যে সকল পাত্র ঠিক করা উচিত

স্বপ্নের পুরুষকে খুঁজে খুঁজে হয়রান হয়ে অবশেষে বানরের গলায় দিলাম মুক্তোর হার—বিয়ের কয়েক দিন যেতে …

Leave a Reply