শাড়ী পরার জন্য সামাজিক মাধ্যমকে আহ্বান

লাইফস্টাইল Dec 02, 2019 741 Views
Googleplus Pint
noimage

লাইকবিডি ডেস্ক: ভারতীয় উপমহাদেশে বরাবরই মেয়েদের প্রিয় একটি পোশাক হিসেবে সুপরিচিত শাড়ী। দৈনন্দিন ব্যস্ততায় ধীরে ধীরে শাড়ীর বদলে, সহজ-স্বচ্ছন্দে চলাফেরা করা যায় এমন পোশাকই বেছে নিতে শুরু করেছেন মেয়েরা।

কিন্তু নারীদের আবার শাড়ীতে ফিরিয়ে আনতে অভিনব এক উদ্যোগ শুরু হয়েছে ভারতে। দক্ষিণ ভারতের ব্যাঙ্গালুরুর দুই বান্ধবীর আক্ষেপ ছিল, পোশাক হিসেবে শাড়ীই তাদের পছন্দের শীর্ষে থাকলেও, খুব কম সময়ই তারা এই পোশাকটি পরেন।

কেননা স্বচ্ছন্দে চলাফেরার জন্য শাড়ীর বদলে ব্যবহারিক পোশাক হিসেবে জিন্স বা সালোয়ার-কামিজই প্রাধান্য পেয়েছে অনেক বেশি। অথচ দক্ষিণ এশিয়ার নারীদের পোশাক হিসেবে বরাবরই শ্রেষ্ঠ হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছে শাড়ী।

এ কারণে মার্চ মাসের শুরু থেকে ব্যাঙ্গালুরুর দুই নারী ব্যবসায়ী আলী মাথান এবং আঞ্জু মোঘল কদম ভারতীয় নারীদেরকে সপ্তাহে অন্তত দুটি দিন কিংবা বছরে অন্তত ১০০ বার শাড়ী পরার জন্য আহ্বান জানান। আর তাদের এই আহ্বানে রীতিমত সাড়া পড়ে যায় সামাজিক মাধ্যম ফেসবুক ও টুইটারে।

এরপর টুইটারে তাদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে শাড়ী পরে নিত্য-নতুন ছবি পোস্ট করতে থাকেন ফলোয়াররা। শাড়ী পছন্দের শীর্ষে থাকলেও নিয়মিত পরতে না পারায় আক্ষেপ ছিল দুই বান্ধবীর

ফেসবুকেও ১০০ দিন শাড়ী পরার লক্ষ্য নিয়ে ওয়েব পেইজ খোলা হয়। সেই পেইজেও শাড়ী পরার ছবি, অনুভূতি ভাগাভাগি করেন সদস্যরা। শাড়ীকে তারা কতটা ভালবাসেন, কেন ভালবাসেন, কবে কোথায় কোন অনুষ্ঠানে শাড়ী পরার সুযোগ হলো সে সবই শেয়ার করছেন সদস্যরা।

এ রকম একটি ফেসবুক পাতায় একজন নারী নিজের শাড়ী পরা ছবি দিয়ে ক্যাপশনে লিখেছেন ‘পরপর দুদিন দুটো অনুষ্ঠানের কারণে আমার প্রিয় পোশাক শাড়ী পরার সুযোগ হলো সেই সঙ্গে সুযোগ হলো ছবি শেয়ারেরও।

বিবিসি ট্রেন্ডিংকে আঞ্জু মোঘল কদম বলেন, প্রতিটি শাড়ীর ক্ষেত্রে একেকটি উপলক্ষ্য, আবেগ বা সম্পর্কের ওপর ভিত্তি করে একধরনের স্মৃতি তৈরি হয়।

তিনি বলেন, তারা মনে করেন না যে ভারতে শাড়ী কখনও একেবারে হারিয়ে যাবে। তবে এর মধ্য দিয়ে তারা এই পোশাকটির বৈচিত্র্য ও উজ্জ্বলতাকে আবার তুলে ধরতে চান।

Originally posted 2017-07-27 04:15:59.

BB Links

  • Link :
  • Link+title :
  • HTML Link:
  • BBcode Link:
Googleplus Pint
Hasan (3071)
Administrator
User ID: 1
I Love likebd.com

Comments