Likebd.com
এখন ঘরেই বিদ্যুৎ সাশ্রয়

এখন ঘরেই বিদ্যুৎ সাশ্রয়

বিডিলাইভ রিপোর্ট: বিদ্যুৎ আমাদের মৌলিক চাহিদার একটি। আমাদের বিদ্যুতের ব্যবহার প্রতিনিয়ত বাড়ছে। প্রতিদিন অনেক শক্তি খরচ করে চলেছি আমরা চারপাশে। আর অসচেতনতার কারণে অনেকসময় শক্তির ভুল ব্যবহার করে ফেলছি আমরা। তবে ইচ্ছে করলেই কিন্তু এই অযথা শক্তির অপচয়কে রোধ করে শক্তি সাশ্রয়ী করে তুলতে পারেন আপনি আপনার নিজের ঘরটিকে। জেনে নেয়া যাক এমন কিছু পদ্ধতি-১. […]

লাইকবিডি রিপোর্ট: বিদ্যুৎ আমাদের মৌলিক চাহিদার একটি। আমাদের বিদ্যুতের ব্যবহার প্রতিনিয়ত বাড়ছে। প্রতিদিন অনেক শক্তি খরচ করে চলেছি আমরা চারপাশে। আর অসচেতনতার কারণে অনেকসময় শক্তির ভুল ব্যবহার করে ফেলছি আমরা। তবে ইচ্ছে করলেই কিন্তু এই অযথা শক্তির অপচয়কে রোধ করে শক্তি সাশ্রয়ী করে তুলতে পারেন আপনি আপনার নিজের ঘরটিকে। জেনে নেয়া যাক এমন কিছু পদ্ধতি-

১. ফ্লোরোসেন্ট লাইট আর সিএফএল অন্য সব বাল্বের চাইতে ৫ গুন বেশি আলো দেয়। সেইসাথে ৭০ শতাংশ পর্যন্ত বিদ্যুৎ সাশ্রয় করে। তাই এই ধরণের বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী লাইট ব্যবহার করুন।

২. ঘর থেকে বের হওয়ার সময় খেয়াল রাখুন যেন এমন কোন যন্ত্রপাতি না চালু থাকে যেটা কেবল শক্তির অপচয়ই করছে শুধু। ঘরের সব সুইচগুলো বন্ধ করুন।

৩. অযথাই কোন যন্ত্রকে না চালিয়ে সেটাকে বন্ধ করে রাখুন। কারণ, ২৪ ঘন্টা একটি কম্পিউটার চালিয়ে রাখলে সেটা ফ্রিজের চাইতে বেশি শক্তি অপচয় করে। তাই যেটা ব্যবহার করছেন না তা বন্ধ রাখুন। কম্পিউটারের ক্ষেত্রে একেবারে বন্ধ করে না রাখলেও সেটাকে স্লিপ মুডে রাখুন। আপনার এই একটি মাত্র কাজ শক্তির অপচয় শতকরা ৪০ শতাংশ কমিয়ে দেবে।

৪. ব্যাটারি চার্জার, তা সেটা ল্যাপটপের হোক বা মোবাইলের, চার্জ শেষ হয়ে যাওয়ার পরপরই খুলে নিন। কারণ যতক্ষণ সেটি প্লাগড ইন থাকবে ততক্ষণ শক্তি খরচ হবে।

৫. এই শীতে ঘরের ওয়াটার হিটারটির তাপমাত্রা একটু কমিয়ে দিন। ৬০ ডিগ্রী সেলসিয়াস থেকে সেটাকে কমিয়ে আনুন ৫০ ডিগ্রী সেলসিয়াসে। এতে করে আপনার পানি গরম হবে, অথচ বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে ১৮ শতাংশ।

৬. অটো ডিফ্রস্ট রেফ্রিজারেটরগুলোতে শক্তি বেশি খরচ হয়। বিশেষ করে ফ্রিজ যত বড় হবে তত সেটার বিদ্যুৎ খরচের পরিমাণ বাড়বে।

৭. ঘরে এয়ার কন্ডিশনার হয়তো লাগিয়েছেন, কিন্তু সেটা আপনার ঘরের জন্যে ঠিকঠাক আকারের তো? চেষ্টা করুন ঘরের জন্যে যথাযথ বৈদ্যুতিক যন্ত্র কিনতে। এতে করে শক্তির সাশ্রয় হবে আর আপনার খরচাটাও কমবে।

৮. ঘরের ভেতরে ছোটখাটো গাছ লাগান। এটি আপনার চোখকে যেমন প্রশান্তি দেবে, তেমনি নিজের ছায়ার মাধ্যমে ঘরের পরিবেশকে রাখবে ঠান্ডা। তবে সেটা কেবল গরমকালেই। শীতকালে ডালের পাতা ঝরিয়ে দিয়ে বাইরের সূর্যের আলো আর তাপ ভেতরে প্রবেশের সুযোগ করে দেবে গাছ।

৯. শীতকালে ঘরের তাপ বাইরে চলে যাওয়ার অন্যতম একটি কারণ হচ্ছে জানালা। ফলে বিদ্যুৎ খরচটাও হয়ে যায় বেশি। চেষ্টা করুন জানালাগুলো পর্দা দিয়ে ঢেকে রাখতে। সেইসাথে কোন ফাটা অংশ বা এমন কিছু জানালায় থেকে থাকলে সেটার ওপরেও আবরণ দিয়ে দিন।

১০. দিনের আলোর দিকে প্রাধান্য দিন আর দিনের বেলা ঘরে আলো জ্বালানো বন্ধ করুন।

Add comment

Most discussed