রিকশাওয়ালার দুই গালে চড় মেরেছিলাম: অপু বিশ্বাস

বিনোদন Apr 07, 2019 2788 Views
Googleplus Pint

সেলুলয়েডের পর্দায় দর্শক তারকাদের
বিভিন্ন সময়ে নানান রঙ বেরঙের
চরিত্রে অভিনয় করতে দেখেন।
তাঁদের অভিনয় দেখে দর্শক কখনো
হাসেন, আবার কখনো কখনো তাদের
চোখ থেকে টপটপ করে জল গড়িয়ে
পরে। আর এখানেই তো অভিনেতা বা
অভিনেত্রীর স্বার্থকতা। রঙিন
দুনিয়ায় নিজেকে টিকিয়ে রাখার
দৌড়ে অনেকেই পিছিয়ে পরেন।
তবে অনেকের ভাগ্যে ভিন্ন কিছুই
লেখা থাকে। আজ তিনি তারকা।
অভিনয় দক্ষতাই তাঁকে এতদূর নিয়ে
এসেছে।
কিন্তু তারকা খ্যাতি পাওয়ার আগে
বা পরে অনেক ভুলই হয়তো করেছেন
তাঁরা। যা তাদের কাজের ক্ষেত্রে
সমাজে নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি
তৈরি করে। তবে নিজের অজান্তেই
সে ভুলগুলো হয়তো করেছিলেন। এ
নিয়ে তাঁদের মধ্যে অনুতপ্তবোধও
কাজ করে। আর সেই অনুপ্রেরণা
থেকেই প্রিয়.কমের নতুন বিভাগ ‘অন্য
আমি’- যেখানে তারকারা
নিজেদের নেতিবাচক দিকগুলো
তুলে ধরবেন। তাঁরা এখানে কথা
বলবেন তাদের অনিচ্ছাকৃত ভুলগুলো
নিয়ে। আজকের ‘অন্য আমি’ বিভাগের
তারকা বাংলা ছবির জনপ্রিয়
অভিনেত্রী অপু বিশ্বাস।
আমি প্রথম তখন চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু
করেছি। আমার গাড়ির একজন
ড্রাইভার ছিলেন। তাঁর গ্রামের
বাড়ি আমার এলাকায়(বগুড়ায়)। তখন
আমি ঢাকার অনেক কিছুই চিনতাম না,
জানতামও না। সে একদিন আমাকে
বললো-আমি আর ঢাকায় থাকবো না।
গ্রামে চলে যেতে চাই। ঢাকায়
নাকি কেন জানি তার মন টিকছে
না। এই বলে সেই ড্রাইভার চলে গেল।
তখন আর কি করার, আমাকেও তো
চলতে হবে?
তারপর আমি একা একাই গাড়ি ড্রাইভ
করা শুরু করলাম। তখন বুদ্ধিও অনেকটা কম
ছিল। হুট করেই অনেক সিদ্ধান্ত নিয়ে
নিতাম। এরমধ্যে একদিন আমার একটি
ছবির শুটিং চলছে রাজধানী
মিরপুরের বোটর্নিকাল গার্ডেনে।
আমি গাড়ি নিয়ে যাচ্ছিলাম। তখন
মিরপুর এক নম্বরের কাছাকাছি একটি
মোড়ে একটু জ্যামের মত ছিল।
সেখানে আমি একজন
রিকশাওয়ালাকে ইশারা করে
বললাম আমি আগে যাই। এরপর আপনি
যান। গাড়ির মুখটা বাড়ানো হওয়ার
কারণে আামি যদি আগে না যাই
তাহলে সে যেতে পারবে না।
কিন্তু সেও তখন আমার কোন কথা শুনবে
না। রিকশাওয়ালা আমার আগে
যাওয়ার চেষ্টা করলো। যার কারণে
আমার নতুন গাড়ির সামনের বেশ
কিছুটা অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এই ঘটনায়
আমি হঠাৎ খুব রেগে যাই। পরে আমি
গাড়ি থেকে নেমে রিকশাওয়ালার
দুই গালে চড় মারি। রিকশাওয়ালার
পকেটে হাত দিয়ে বেশ কিছু টাকা
পেলাম। সেগুলোও নিয়ে নেই। পরে
গুনে দেখলাম ২৫০ টাকার মত। তখন
আশেপাশে অনেক লোকের ভীড় জমে
গেছে। আমি গাড়ি টান দিয়ে
সামনে এগুতেই দেখি একটি সিনেমা
হলে (সনি সিনেমা) আমার অভিনীত
ছবি চলছে।
এরপর গাড়ি থামিয়ে নামার পর
কয়েকজন বলছে, ‘অপু বিশ্বাস না!’ যদিও
আমি তখন দর্শকদের কাছে অতটা
পরিচিতি পাই নি। এর কিছুক্ষণ পর
আবার আমি সে জায়গাটায় যাই,
দেখি রিকশাওয়ালা অসহায়েরমত
দাঁড়িয়ে আছে। আমি তার কাছে
গিয়ে তাঁকে পাঁচ হাজার টাকা
দেই। সেদিন আমার খুব কান্না
পেয়েছিলো। আমি এমন কিছু করতে
পারি, ভাবতেই কষ্ট হচ্ছিলো।
শুটিংয়ে যাওয়ার পরও
মানসিকভাবে অনেকটা বিপর্যস্ত
ছিলাম। কোনভাবেই ব্যাপারটি
মেনে নিতে পারছিলাম না।
বিষয়টি

Originally posted 2016-02-28 15:06:31.

BB Links

  • Link :
  • Link+title :
  • HTML Link:
  • BBcode Link:
Googleplus Pint
jamal pk (19)
Author
User ID: 1563

Comments